বাসে বোমা আছে গুজবে আতঙ্ক ছড়াল রায়গঞ্জে। বুধবার দুপুর নাগাদ ঘটনাটি ঘটে উদয়পুর এলাকার রায়গঞ্জ-বালুরঘাট রাজ্য সড়কে একটি উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ নিগমের বাসে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এ দিন রায়গঞ্জ-বালুরঘাটগামী ওই সরকারি বাসের চালক এক মহিলা যাত্রীর কাছ থেকে জানতে পারেন গাড়িতে বোম রাখা আছে। চালক পুলিশকে খবর দেন। আতঙ্কে যাত্রীরা নেমে যান। কিন্তু বিরাট পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছে বাসে তল্লাশি চালিয়ে বোম খুঁজে পায়নি। রায়গঞ্জের ডিএসপি সালিমা লামা বলেন, “বাসের এক মহিলা যাত্রীকে মোবাইল ফোনে জানানো হয় বাসে বোম রাখা আছে। তিনি আতঙ্কে চেঁচামেচি জুড়ে দিলে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়। যে নম্বর থেকে ফোন এসেছিল সেটা খতিয়ে দেখে দুষ্কৃতীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।” পুলিশ জানায়, বালুরঘাটের উত্তর চকভবানী এলাকার বাসিন্দা গার্গী চক্রবর্তী তাঁর মাসি আশালতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে রায়গঞ্জের এক আত্মীয় বাড়ি থেকে বালুরঘাটে ফিরছিলেন। তাঁর মোবাইলে বোমার ফোনটি আসে। গার্গী দেবী বলেন, “রায়গঞ্জ থেকে বাস ছাড়ার পরে কয়েকটি ফোন আসে। দু’বার ফোন ধরি। বলা হয় বাসে বোমা আছে। কিছুক্ষণের মধ্যে বিস্ফোরণ হবে। তা জানিয়ে চালককে বাস থামাতে বলি।” বাস চালক নরেন্দ্রনাথ বসাক বলেন, “ঘটনাটি শোনার পরে পুলিশকে খবর দিই। পরে ডিপোতে গিয়ে অন্য একটি বাস এনে যাত্রীদের তুলে বালুরঘাটে রওনা হই।” প্রাথমিক তদন্তের পরে পুলিশ জানায়, দিল্লির একটি ল্যান্ডলাইন নম্বর থেকে ওই মহিলার মোবাইলে ফোন আসে। চেষ্টা করেও ওই নম্বরে ফোন ধরা সম্ভব হয়নি। মহিলা যাত্রী পুলিশকে জানান, দিল্লিতে তাঁর পরিচিত ব্যক্তি বা আত্মীয় নেই।

 

 

 

Advertisements