ইটাহার থানার তারাঞ্চি এলাকায় ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে তিন জনের মৃত্যু

দুটি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে তিন জনের মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল ইটাহার থানার তারাঞ্চি এলাকায় ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কে। সোমবার সকালে ওই ঘটনার পর পুলিশের বিরুদ্ধে উদ্ধারকাজে গাফিলতির অভিযোগ তুলে উত্তেজিত জনতা প্রায় তিনঘন্টা জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান। উত্তেজিত জনতার একাংশ দমকলের একটি ইঞ্জিন ও পুলিশের একটি জিপ লক্ষ্য করে ইঁট-পাথর ছোঁড়েন বলে অভিযোগ। সেই সময় ইঁটের আঘাতে ইটাহার থানার এক সাব ইন্সপেক্টর বিস্তৃত সুব্বা সামান্য জখম হন। দমকলের একটি গাড়িরর কাঁচ ভেঙে যায়। উত্তেজিত জনতা পুলিশের জিপটিও উল্টে দেয়। রায়গঞ্জের ডিএসপি অম্লান ঘোষের নেতৃত্বে বিরাট পুলিশ বাহিনী এলাকায় গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পুলিশ জানিয়েছে, মৃতদের মধ্যে দুটি ট্রাকের চালক এবং একজন খালাসি রয়েছেন। মৃতদের নাম প্রভাসমণ্ডল সরকার (৪০)। তাঁর বাড়ি ঝাড়খন্ড এলাকায়। তিনি রায়গঞ্জগামী ট্রাকের চালক। এ ছাড়া কলকাতাগামী ট্রাকের চালক নরেন্দ্র দুর্গা রাও (৪০) এবং খালাসি পাণ্ডুর মোহন রাও (৩৮) দেহগুলিও উদ্ধার করা হয়েছে। এই দুই জনের বাড়ি অন্ধ্রপ্রদেশের কৃষ্ণা জেলার ভেঙ্কেটশওয়ারা নগর এলাকায়। এদিন সকালে তারাঞ্চি এলাকায় কলকাতাগামী অন্ধ্রপ্রদেশের একটি ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রায়গঞ্জগামী একটি পাথরবোঝাই ট্রাককে মুখোমুখি ধাক্কা মারে। ঘটনাস্থলেই কলকাতাগামী ট্রাকের চালক ও খালাসির মৃত্যু হয়। রায়গঞ্জগামী ট্রাকের চালক প্রভাসবাবু গাড়ির ভিতরে দীর্ঘক্ষন আটকে পড়ে যন্ত্রণায় ছটফট করতে থাকেন বলে বাসিন্দাদের অভিযোগ। খবর পেয়ে পুলিশ একটি রিকভারি ভ্যান ও দুটি দমকলের ইঞ্জিন নিয়ে গিয়ে দুর্ঘটনাগ্রস্ত ট্রাকগুলিকে রাস্তা থেকে সরানোর পাশাপাশি জখম প্রভাসবাবুকে উদ্ধারের চেষ্টা করেন। কিন্তু উদ্ধার করার আগেই ওই চালকের মৃত্যু হয়। ওই চালকের মৃত্যুর পরই উত্তেজিত জনতার একাংশ পুলিশের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগে পথ অবরোধ করেন। পুলিশ ও দমকলের গাড়ি লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুঁড়তে শুরু করেন। সেই সময় ওই পুলিশ অফিসার জখম হন। বাসিন্দাদের অভিযোগ, পুলিশ দ্রুত একাধিক রিকভারি ভ্যান নিয়ে উদ্ধার কাজে নামলে ওই চালককে বাঁচানো সম্ভব হত। রায়গঞ্জের ডিএসপি অম্লান ঘোষ বলেন, “পুলিশের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ সঠিক নয়। পুলিশ একাধিক রিকভারি ভ্যান নিয়েই উদ্ধারকাজে নেমেছিল। আসলে দুটি ট্রাকের যেভাবে সজোরে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে তাতে উদ্ধার করতে একটু দেরি হয়। ওই চালক দুর্ঘটনার কিছুক্ষন পরই মারা যান। গাড়ি ভাঙচুর ও পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় অভিযুক্তদের চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে।”

About Amar Raiganj

https://www.facebook.com/theraiganjportal
This entry was posted in News, Raiganj, Uttar Dinajpur and tagged , , , , , . Bookmark the permalink.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s